মিসওয়াকের ফযিলত ও উপকারীতা

    0
    90
    মিসওয়াকের ফযিলত ও উপকারীতা
    মিসওয়াকের ফযিলত ও উপকারীতা

    মিসওয়াকের ফযিলত ও উপকারীতা

     

    মেসওয়াক নবী পাক (সা:) এর একটি মূল্যবান সুন্নাত। এটি ফিরতের অন্তর্ভুক্ত। বহু হাদীসে মিসওয়াকের ফযিলত বর্ণিত হয়েছে। রাসুল (সা:) এর প্রিয় কাজগুলির মধ্যে মিসওয়াক শীর্ষ স্থানীয়। মিসওয়াক দ্বারা মুখের পবিত্রতা অর্জনের পাশাপাশি আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভ করার মাধ্যমে আল্লাহর পক্ষ থেকে উত্তম প্রতিদান আশা করা যায়। পবিত্রতা অর্জন কারীকে আল্লাহ পাক ভালবাসেন। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ পাক
    ان الله يحب التوابين ويحب المتطهرين

    আল্লাহ পাক পবিত্রতা অর্জনকারী ও তওবাকারীদের ভালবাসেন। পবিত্রতা ছাড়া কোন ইবাদত আল্লাহর নিকট কবুল হয়না। ওযু, গোসল, তায়াম্মুম, মেসওয়াক, পেশাব-পায়খানার পর পবিত্রতা হাসিলের উপায় সমূহ ইত্যাদির সঠিক পদ্ধতি আল্লাহর পয়গম্বরদের মাধ্যমে আল্লাহ পাক মানব জাতিকে শিক্ষা দিয়েছেন। এসব পদ্ধতিগুলি শিক্ষাদানকারী দুনিয়ার কোন সাধারণ মানুষ নয়। কাজেই এগুলির গুরুত্ব সহজেই অনুমান করা যায় ।

    ওযুর পূর্বে মিসওয়াক করে নামায পড়লে অধিক সওয়াবের অধিকারী হওয়া যায়। মিসওয়াক উম্মতে মুহাম্মদীর জন্য গুরুত্ব পূর্ণ নেয়ামত। যারা রাসুলকে ভালবেসে তার শিখানাে পদ্ধতিতে মেসওয়াক করবেন তাদের মর্যাদা দরবারে এলাহীতে বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে। উম্মতের দরদী নবী বলেন, যদি আমার উম্মতের জন্য কষ্ট না হত তবে তাদের জন্য মিসওয়াক করা আবশ্যক। করে দিতাম। আমরা নূর নবীর উম্মত কিন্তু নবী পাক (সা:) এর বিভিন্ন সুন্নাত পালনে আমাদের উদাসীনতা সীমাহীন। অবহেলায় অনেক বরকতময় সুন্নাতের ফায়দা থেকে আমরা বঞ্চিত হই।

    মানুষের মুখ নিয়মিত পরিস্কার না করলে দাঁতের মধ্যে যে সকল খাদ্যকনা আটকে থাকে, সেগুলি পচে বিভিন্ন রােগ-জীবাণু সৃষ্টি হয়ে আমাদের পাকস্থলীতে চলে যায়। ফলে বিভিন্ন কঠিন রােগ উৎপন্ন হয়, যেমন- পেটের বিভিন্ন সমস্যা, বদ হজম, অজীর্ন, কোষ্ঠ কাঠিন্য, লিভারের গােলযােগ ইত্যাদি। রােগ বালাই দেখা দিলে মানব জীবনে অশান্তি আসে। এ অশান্তি থেকে বাঁচানাের জন্য যে ঔষধ দিয়েছেন আল্লাহর হাবীব (সা:) এটিই হচ্ছে মেসওয়াক যা দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাযে অযুর পূর্বে করে নিলে উপরােক্ত কঠিন রােগাক্রান্ত হওয়ার
    গম্ভাবনা থেকে রেহাই পাওয়া যায়। মেসওয়াক করলে দাঁত পরিস্কার হয়, দাঁত ও মাড়ি শক্ত হয়। মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়, মেসওয়াকের আশ্চর্য গুণাগুণ হলাে- হৃদপিণ্ডে সখিত পুঁজ, ময়লা মেসওয়াক করলে বেরিয়ে আসে। পরীক্ষা করে দেখবেন, মেসওয়াক দ্বারা চর্বন দন্তের ভিতর দিকে ঘষলে এক ধরণের বমিবমি ভাব আসে।

    মাঝে মধ্যে হালকা বমিও হয়ে যায় এর মাধ্যমে অজীর্ণ ভিতরে প্রবেশকারী যার হাত ও জাবান বেকে আনিবজাতি নিরাপদ, তিনি খাঁটি মুসলমান। -আল হাদিস

     

    অপ্রয়ােজনীয় পদার্থতি ববির হলে আধুনিক য় ল ন মরা হত কিন্তু ব্রাম যতই দাম হােক না কেন, উপরােল্লিখিত উপকার সহ ত্রান হতে হয় যাবে না তাহাড় ব্রা তৈরী হয় মানুষের বুদ্ধি হচ্ছেন সঞ্জয় দত করতে হয় আল্লাহর কুদরত কমল তৈরী হের লল, তনয় দে বামের দানাগুলির ঘর্ষণে নত হয় কিন্তু যে ডল দিয়ে সময় দুর হয় থেকে উৎপন্ন নত পৰিকাৰক দল যুব নরম হলে এর কার হন দত মরলেও দতের কোন ক্ষতি হয়।

    অনেকে ভাবেন এটি নধৰন একটি মাত্র একটি ব্রাশের দাম সর্বোচ্চ ১০০ টকা হয় একটি মেদ হত ত দ =
    ২০ টাকা খরচ হয় মেসওয়াক করতে করতে গত দ য় র স থ = অসুবিধা বে-সেব) লাগতে পারে মনে রাখা উচিত ছিল মত দেন করবেন মরণকলে তার জবন থেকে অনায়াসে কালিয়া মাহদত হয় অসহ দাঁতের যত্নে মেসওয়াকের বিকল্প নাই উল্লেখ্য যে, যাদের নত না এমন দাঁতের যত্নে যারা অধিক সচেতন তার মেসওয়াকের

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here